রাজশাহীর বাঘায় কলেজ ছাত্রকে পিটিয়ে হত্যা, আটক -৫

স্টাফ রিপোর্টারঃ রাজশাহীর বাঘা উপজেলার পৌরসভার ৩ নং ওয়ার্ডে মেহগনি গাছের ডাল কাটাকে কেন্দ্র করে হাতুরী ও লোহার রড দিয়ে পিটিয়ে রিদওয়ান হৃদয় (২০) নামে এক কলেজ ছাত্রকে হত্যা করা হয়েছে। রিদওয়ান হৃদয় বাঘা শাহদৌল্লাহ সরকারী কলেজের ডিগ্রি দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র।

জানা যায়, বুধবার (১ জুলাই) দুপুর আড়াইটার দিকে উপজেলার পাকুড়িয়া (কলিগ্রাম) এলাকায় এই ঘটনা ঘটেছে। নিহত হৃদয় ছাড়াও পরিবারের আরও ৫ জন আহত হয়েছে।নিহত হৃদয়ের ছোট ভাই সাব্বির গুরুতর হওয়াতে রামেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। বাকী ৪জন বাঘা স্থাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা নিয়েছে। ঐদিন দিবাগত রাতেই নিহতের বাবা দীন মোহাম্মদ (দুখু) বাদী হয়ে ১৫ জনকে আসামী করে বাঘা থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। এই ঘটনায় থানায় এজাহারভুক্ত নামীয় সাদেক আলী (৬৫), রুমিয়া বেগম(৫৫), তাজমিরা বেগম(২৫) ও কল্পনা খাতুন(৩২) কে পুলিশ আটক করেছে।

এ বিষয়ে পৌর ওয়ার্ড কাউন্সিল সাইফুল ইসলাম টগর বলেন, উপজেলার পাকুড়িয়া (কলিগ্রাম) গ্রামের দ্বীনমোহাম্মদ (দুখু) ছেলে রিদওয়ান হৃদয় (২০) নিজ বাড়ির মেহগনি গাছের ডাল কাটছিল। এ সময় বাড়ির পাশের রকসেদ আলীর ছেলে সাদেক আলী (৬৫) ওই গাছটি তার জমির উপর দাবি করে। এ নিয়ে উভয়ের মধ্যে তর্ক- বিতর্ক শুরু হয়। এক পর্যায়ে যা মারামারিতে রুপ নেয়। এই সময় আসামীদের মারধরে হৃদয় গুরুতর আহত হয়। পরে তাকে স্থানীয় হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ঢাকা নিয়ে যাওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়।

এ বিষয়ে বাঘা থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নজরুল ইসলাম বলেন, ঘটনাটি জানার পর পরই ঘটনাস্থলে গিয়েছিলাম। লাশ তার বাড়ি থেকে থানায় এনে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। এই ঘটনায় বাঘা থানায় একটি হত্যা মামলা রেকর্ড হয়েছে। এ মামলায় ৫ জনকে আটক করা হয়েছে।

শেয়ার করুন

কমেন্ট করুন

     এই ধরনের আরও খবর

ফেসবুক

পুরাতন খবর খুঁজুন