গাইবান্ধায় ভ্রাম্যমান আদালতে শিক্ষকের ১ লক্ষ টাকা জরিমানা

বিশেষ প্রতিনিধিঃ গাইবান্ধার ফুলছড়িতে এক স্কুল শিক্ষকের ১ লক্ষ টাকা জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমান আদালত।

জানা যায়, গতকাল শনিবার রাতে গাইবান্ধা সদর উপজেলার কোমরনই গ্রামের আবুল হোসেন পুত্র সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আঃ হান্নান ফুলছড়ি উপজেলার কঞ্চিপাড়া ইউনিয়নের জনৈকা এক নাবালিকা বালিকা নিয়ে উপজেলা পরিষদ চত্বরে ঘোড়াঘুড়ি করতে থাকে। এসময় এলাকাবাসীর সন্দেহ হলে তদেরকে ডেকে এই ঘোড়াঘুড়ির কারন জানতে চাইলে তারা কারো কথার কোন উত্তর না দিয়ে দ্রুত মোটর সাইকেল যোগে এলাকা ত্যাগ করে চলে যেতে থাকলে এলাকাবাসী তাদের পিছু নিয়ে ফুলছড়ি উপজেলার আনন্দবাজার এলাকায় এসে পুনরায় তাদেরকে আটক করে। এসময় তাদেরকে আটক করে কঞ্চিপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ লিটন মিয়ার বাড়িতে নিয়ে রাখা হয়।

এদিকে এ খবর ফুলছড়ি উপজেলার নির্বাহী অফিসার ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট জনাব আবু রায়হান দোলন জানতে পেয়ে আজ রবিবার সকালে উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা জনাবা পাপিয়া কে কঞ্চিপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ লিটন মিয়ার বাড়িতে গিয়ে তদন্ত পূর্বক ঘটনার সত্যতা উৎঘাটনের জন্য বলেন। তিনি ঘটনাস্থলে গিয়ে ঘটনার তদন্ত পূর্বক ঘটনার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট স্কুল শিক্ষক আঃ হান্নান ও জনৈকা ভিকটিম কে উদ্ধার করে তার হেফাজতে উপজেলা পরিষদে নিয়ে আসেন। পরবর্তীতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট জনাব আবু রায়হান দোলন ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে বাল্য বিবাহ নীরদ আইন ২০১৭ এর ৭ (১) ধারা মোতাবেক নাবালিকা মেয়েকে জোর পূর্বক বিবাহ করার অপরাধে স্কুল শিক্ষক আঃ হান্নানের ১ লক্ষ টাকা জরিমানা অনাদায়ে ৩ মাসের কারাদন্ড প্রদান করে। পরবর্তীতে অভিযুক্ত শিক্ষক নগদে জরিমানার টাকা পরিশোধ করে। অন্যদিকে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট জনাব আবু রায়হান দোলন নিজ হেফাজতে ঐ নাবালিকা কে তার বাড়িতে পৌছে দেন।

শেয়ার করুন

কমেন্ট করুন

     এই ধরনের আরও খবর

ফেসবুক

পুরাতন খবর খুঁজুন