শহর ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মাহফুজুর রহমান পলেনের বিরুদ্ধে মামলা – গ্রামীন নিউজ২৪ টিভি

মিজানুর রহমান, মেহেরপুর প্রতিনিধিঃ শহর ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ও মেহেরপুর সদর উপজেলা আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের আহবায়ক মাহাফিজুর রহমান পলেনের বিরুদ্ধে মেহেরপুর সদর থানায় একটি মামলা দায়ের হয়েছে।
মামলার বাদী মেহেদি হাসান পিতা কাওসার আলী সাং কাশ্যব পাড়া 6 নম্বর ওয়ার্ড-মেহেরপুর সদর থানার এজহার অনুযায়ী জানা যায় গত 29 7 2020 তারিখে রাত্রি আনুমানিক দশটার সময় মেহেরপুর ইট ভাঙ্গার শ্রমিকের ঘরে- গাড়ির সিরিয়াল কে কেন্দ্র করে কথা কাটাকাটি হয়।
একপর্যায়ে ইটভাটার শ্রমিক এর সভাপতি বাবলু ও সাধারণ সম্পাদক লাভলু মাহফুজুর রহমান পলেন কে ডেকে নিয়ে আসে।
তারপর মেহেদি হাসান কে মারধর করেন এই ভিত্তির উপরেই মেহেরপুর সদর থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।
উক্ত মামলার আসামী ০১ বাবলু ০২ পলেন ০৩ লাভলু কাছে জানতে চাইলে জানা যায়-
কথা কাটাকাটি হয়েছে এতটুকুই, এ ছাড়া মারামারি র কোন প্রশ্নই ওঠে না। কে বা কাহারা ষড়যন্ত্রমূলক আমাদের বিরুদ্ধে আমাদেরকে ফাঁসানোর জন্য এই মামলা করা হয়েছে।
সাবেক শহর ছাত্রলীগের সভাপতি ও মেহেরপুর সদর থানা আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের আহ্বায়ক মাহফুজুর রহমান পলেন জানিয়েছেন-
আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র চলছে, আমার রাজনীতি দেখে একটি গ্রুপ ঈর্ষান্বিত হয়ে বিভিন্ন মামলা-মোকদ্দমা দিয়ে আমাকে হ্যারেজ করার পায়তারা করে যাচ্ছেন।
উপরে আল্লাহ আছেন তিনি বিচার করবেন। আমাকে ফাঁসানোর জন্য আমাকে এই মামলার দুই নম্বর আসামি করা হয়েছে।
হাসপাতালে চিকিৎসার পরে যে পুলিশ কেসের ছিলিপ দেওয়া হয়েছে-তাতে স্পষ্ট উল্লেখ করা আছে- যদি ব্যথা হয় তাহলে ব্যথার ওষুধ খেতে হবে।
এর থেকে বোঝা যায় বাদি সুস্থ না অসুস্থ ?
মাহফুজুর রহমান পলেন বলেন বাবলু আমার নিকটবর্তী আত্মীয়,তিন আমার চাচা হোন, তিনি যেকোনো সময় যেকোনো কাজে আমাকে ডাকেন এবং ইট ভাঙ্গা গাড়ি আমারও আছে সেই গাড়ির খোঁজখবর নিতে মাঝেমধ্যেই আমি অফিসে যাওয়া আশা করি।
অফিসে যে কোন সমস্যা হলে আমার কর্তব্য অফিসে যাওয়া। সেই সুবাদেই আমি অফিসে গিয়েছিলাম। কিন্তু একটি পক্ষ আগামী ঈদ ভাঙ্গা শ্রমিকের নির্বাচনে সভাপতি প্রার্থী হবেন তাই এখন থেকেই তিনি বিভিন্ন ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হচ্ছেন। তার এই ষড়যন্ত্র রাজনৈতিকভাবে মোকাবেলা করা হবে ইনশাল্লাহ।
ইট ভাঙ্গা শ্রমিকের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক জানিয়েছেন আমরা দীর্ঘদিন ধরে এই অফিস চালিয়ে আসছি আমাদের এই অফিসে কোনো গ্রুপিং-লবিং নেই কিন্তু ইদানিং লক্ষ্য করা যাচ্ছে একটি গ্রুপ এই অফিস টাকে তস্রুপাত করতে, এই ধরনের ষড়যন্ত্র করছে। আমরা ব্যবসায়িক আমরা ব্যবসা করে খাই ,আমাদের নামে কোন জায়গায় একটা জিডি বা মামলাও নেই।
আমরা আশা করছি প্রশাসন সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে এর ন্যায্য বিচার করবেন।

শেয়ার করুন

কমেন্ট করুন

     এই ধরনের আরও খবর

ফেসবুক

পুরাতন খবর খুঁজুন